× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীর লোকোসেডে ইফতার আয়োজনে হামলা, ভাংচুর ও মারধর


ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ
ঈশ্বরদী পৌর এলাকার ফতেমোহাম্মদপুর(লোকোসেট) হালিমের মোড় এলাকায় আজ রবিবার (১২ মে) আহলে সুন্নাত অনুসারীরা হামলা চালিয়ে আহলে হাদিস সমর্থকদের মারধর ও তাদের বাড়ীঘর, দোকানপাট ভাংচুর করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।  এলাকায় এখন থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। তবে আহলে সুন্নাত অনুসারীরা এ হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ইসলামের অপব্যাখ্যা দেয়ার কারণে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। 

আহলে হাদিস সমর্থক মাইনুদ্দীন আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, তাঁর বাড়িতে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে বিকাল থেকে বাড়িতে শুরু হয় ধর্মীয় আলোচনা। এতে অংশ নেন পাশ্ববর্তী লালপুর উপজেলার রামকান্দাপুর গ্রামের বেলায়েত হোসেন হুজুর। ইফতারের পাঁচ মিনিট পূর্বে হঠাৎ করেই আহলে সুন্নাত অনুসারী ফতেমোহাম্মদপুর মাদ্রাসা মাজহারে ইসলামের প্রিন্সিপাল আবুল খায়ের রিজভী দলবল নিয়ে  বাড়িতে হামলা চালিয়ে বেলায়েত হুজুরকে মারধর করেন। আমাদের বাড়ি ও ফেক্সিলোডের দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। আমরা প্রতিবাদ জানালে আমার বাবা হায়দার আলীসহ পরিবারের লোকজনকে মারধর করেন আহলে সুন্নাত অনুসারীরা। মাইনুদ্দীন আরো বলেন, এলাকার বাইরে থেকে হুজুর এনে ধর্মীয় আলোচনার আয়োজন করায় এই হামলা চালানো হয়েছে।

মাদ্রাসা মাজহারে ইসলামে প্রিন্সিপাল আবুল খায়ের রিজভীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মাইনুদ্দীন আহমেদ তাঁর বাড়িতে জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছে এমন লোকজনকে নিয়ে আলোচনা করছিলেন। এবং তারা ইসলাম সম্পর্কে  নানা অপব্যাখ্যা দেয়ার চেষ্টা করছিলেন। আমরা ইসলাম বিরোধী এসব কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানিয়েছি। এলাকার লোকজন মিছিল করে থানায় গিয়ে এসব ঘটনা থানার কর্মকর্তাদের অভিহিত করেছেন। থানার ওসি আমাদের এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন।

এঘটনায় আজ রাত সাড়ে ১০টায় ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হকের নেতৃত্বে দু’পক্ষের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

কোন মন্তব্য নেই