× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীতে ওসির সামনে সাংবাদিককে লাঞ্ছিত,এস আই ক্লোজড

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 
বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের প্রাক্কালে দৈনিক ভোরের পাতা ও অনলাইন বিটিসি নিউজের ঈশ্বরদী প্রতিনিধি সাংবাদিক ময়নুল ইসলাম  মিন্টুকে ঈশ্বরদী থানায় আটকে স্যান্ডেল দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে তাকে কান ধরে উঠবস করানোর ঘটনা ঘটেছে। গত শুক্রবার ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী ও এস আই শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলাম এই ঘটনা ঘটিয়েছেন। ন্যাক্কার জনক এই ঘটনাটি জানাজানি হলে বিক্ষোভে ফেটে পডেন ঈশ্বরদীর সর্বস্তরের সাংবাদিকবৃন্দ। ওইদিন রাতেই ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবে জরুরী সভা করে পুলিশে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবগত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানানো হয়। ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জহুরুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দেন। এরপর গত বৃহস্পতিবার রাতে ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবে ঈশ্বরদীর সর্বস্তরের সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী ও এস আই শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলাম এর শাস্তি দাবী করে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেয়া হয়। ২৪ ঘন্টা পার না হতেই গতকাল শুক্রবার দুপুরের পর এস আই শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলামকে পাবনা পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে বলে পুলিশ সুত্র নিশ্চিত করেছেন।
ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বপন কুমার কুন্ড’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় নির্যাতনের শিকার সাংবাদিক মিন্টু জানান, বৃহস্পতিবার সকালে থানায় সংবাদ সংগ্রহকালে এসআই শাহীন মোঃ অনু ইসলামের বক্তব্য মোবাইলে রেকর্ড করার সময় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ৪ দফা বেদম প্রহার করে এবং মোবাইল ফরমেট করে সকল তথ্য মুছে দেয়। এসময় ডিজিটাল ও তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়েরের হুমকী দেয়া হয়। এক পর্যায়ে থানার ওসির কে মিন্টুকে নেয়া হলে তিনি তাঁকে কান ধরে উঠবস করতে বাধ্য করেন। এসময় ওসি হুমকি দেন, যদি পুলিশের বিরুদ্ধে আর কোনদিন কোন নিউজ করলে তোর নামে ৪-৫ টি মামলা দিয়ে সারা জীবনের জন্য জেলে ঢুকিয়ে দেয়া হবে।’
এসময় প্রেসক্লাব নেতরা বলেন, সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ডিআইজি (রাজশাহী), পাবনার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে তাৎণিকভাবে জানানো হয়। পুলিশ সুপারের পরামর্শ মোতাবেক ২রা মে এই বিষয়ে একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে। সভায় পুলিশ সুপারের নিকট লিখিত অভিযোগে অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ২৪ ঘন্টার মধ্যে বিচারের দাবী জানিয়ে আলটিমেটাম দেয়া হয়। ওই সময়ের মধ্যে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করা না হলে ৪ঠা মে সকালে ঈশ্বরদী প্রেসকাবের সামনে মানববন্ধন ও পথসভার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরবর্তিতে আদালতে মামলা দায়েরসহ কঠোর কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্তও নেয়া হয়।
ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জহুরুল হক ন্যাক্কারজনক এই ঘটনায় বিব্রত বোধ করে সুষ্ঠু বিচার ও সমাধানের আশ্বাস দেন।

কোন মন্তব্য নেই