× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীতে সংগীত শিল্পী সীমা হত্যা মামলার দুই আসামী গ্রেফতার


ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ
ঈশ্বরদীর বাঘইল গ্রামের চাঞ্চল্যকর  সংগীতশিল্পী সীমা খাতুন হত্যা মামলার ২ আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই অসিত কুমার বসাকসহ একদল পুলিশ আজ রবিবার  (৫ মে) সকালে সাভারের আশুলিয়ায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভূক্ত আসামী শ্বশুর আব্দুর রহমান এবং শ্বাশুড়ি লতা পারভীনকে গ্রেফতার করে সন্ধ্যায় ঈশ্বরদী থানায় নিয়ে আসে

২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর রাতে সীমা আক্তার (২৬) কে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়ে যায় স্বামী আবু রায়হান রাজেশএঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়ঘটনার পর হতে রাজেশ ও তার বাবা ও মা পলাতক ছিলএঘটনায় গত ২৬ শে ফেব্রুয়ারি সীমার মা বিলকিস খাতুন বাদী হয়ে স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়িসহ ৫জনকে আসামী করে পাবনা আদালতে যৌতুকের কারণে সীমাকে হত্যা করা হয়েছে বলে একটি মামলা দায়ের করে

সীমা ঈশ্বরদী শহরের শৈলপাড়া এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী নূর আলীর মেয়েরাজেশ একটি ওষুধ কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলতাদের ৪ বছরের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছেসীমার ভাই বিপুল জানায়, যৌতুকের কারণে প্রায়ই সীমাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো স্বামী রাজেশপরিকল্পিতভাবে হত্যার পর সীমাকে হাসপাতালে রেখে রাজেশ পালিয়ে যায়এসময় চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেনসীমাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার কারণেই তার গলায় দাগ ছিল বলে তিনি দাবী করেন
উল্লেখ্য, নিহত সীমা খাতুন একসময় ঈশ্বরদীতে সংগীত শিল্পী হিসেবে বেশ পরিচিত ছিল।  স্থানীয় একটি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। 

কোন মন্তব্য নেই