× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীতে দন্ডপ্রাপ্ত বিএনপির নেতা-কর্মীর স্বজনদের সহানূভূতি জানাতে বিএনপির ৬ সংসদ সদস্য

> ‘দেশে আইনের শাসন থাকলে হাইকোর্ট থেকে সাবাই খালাস পাবেন’- এমপি হারুন
> ‘যে ঘটনায় একজনও আহত হয়নি সেই মামলায় মৃত্যুদন্ড হয় কিভাবে?’-ব্যরিষ্টার রুমিন ফারহানা

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদক-
ঈশ্বরদীতে আওয়ামীলীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলিবর্ষণ মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা-কর্মীর  স্বজনদের প্রতি ‘সহানুভূতি প্রদর্শন’ করতে ঈশ্বরদীতে এসেছিলেন বিএনপি দলীয় ৬ জন সংসদ সদস্য। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা থেকে তারা ঈশ্বরদীতে এসে পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিবের গ্রামের বাড়ি উপজেলার সাহাপুরে দন্ডপ্রাপ্ত এসব নেতাকর্মীর স্বজনদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সভায় বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান হাবিবের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বিএনপির সংসদ সদস্যদের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের হারুনুর রশীদ, বগুড়া সদর আসনের গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ (জিএম সিরাজ), চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের আমিনুল ইসলাম, বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন, ঠাকুরগাঁওয়ের জাহিদুর রহমান জাহিদ, সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমীন ফারহানা, অ্যাডভোকেট মাসুদ খন্দকার প্রমুখ।


সহানুভূতি সভায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের হারুনুর রশীদ বলেন, বাংলাদেশ এখন জংলীরা পরিচালনা করছে। এই দেশ এখন অনির্বাচিতদের হাতে। তাই একটি নির্বাচিত সরকারের হাতে দেশ পরিচালনার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে। দণ্ডপ্রাপ্তদের মামলার বিষয়ে তিনি বলেন, লন্ডন থেকে তারেক রহমান মামলার বিষয়টি সরাসরি তদারকি করছেন, আপনাদের দু:চিন্তার কোন কারণ নেই। দেশে আইনের শাসন থাকলে মহামান্য হাইকোর্ট থেকে সাবাই এই মামলা থেকে খালাস পাবেন। এছাড়াও দণ্ডপ্রাপ্ত সকল নেতা-কর্মীর পরিবারের পাশে সহযোগীতার আশ্বাসও দেন তিনি।   

ব্যারিষ্টার রুমিন ফারহানা বলেন, ঈশ্বরদীর যে ঘটনায় একজন আহতও হয়নি, সেই ঘটনার মামলাতে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছে, বাংলাদেশে নুন্যতম আইনের শাসন যদি থাকে তাহলে উচ্চ আদালতে এই মামলা খারিজ হয়ে যাবে। তাছাড়া এই রায় সরকারের ফমায়েশি রায়। এই রায় এদেশের জনগণ কেউ মেনে নেয়নি। বিদেশিরাও বিষয়টি উদ্বেগ জানিয়েছে। সাংসদ জি এম সিরাজ বলেন, আমরা ৬ জন সংসদ সদস্য ঈশ্বরদীতে আসার সময় পুলিশ আমাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যার্থ হয়েছে, বাংলাদেশ এখন পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। সহানুভূতি সভায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির সব নেতা-কর্মীর আত্মীয়-স্বজনরা ছাড়াও পাবনা জেলা বিএনপি এবং আশে-পাশের বিভিন্ন জেলার বিএনপিসহ অঙ্গসহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন পাবনা জেলা বিএনপির সদস্য সচিব সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক।   

কোন মন্তব্য নেই