× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ভারত, নিউজিল্যান্ড নাকি বৃষ্টি-আজ জিতবে কে?

চাইলেই নিজেদের সৌভাগ্যবান ভাবতে পারেন নিউজিল্যান্ড দলের ক্রিকেটাররা। লিগ পর্বের বেশ কয়েকটি ম্যাচ হারের পথে থেকেও শেষ মুহূর্তে জয় ছিনিয়ে আনে তারা। আর তাদের সেমিফাইনালে ওঠা তো আরও চমকপ্রদ ছিল। শুধুমাত্র রানরেটে এগিয়ে থাকায় শেষ চারের টিকিট নিশ্চিত হয় তাদের। নতুবা আজ (মঙ্গলবার) ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে ভারত-নিউজিল্যান্ড নয়, বিশ্ববাসী দেখত দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি ভারত-পাকিস্তানের লড়াই।
স্বভাবতই ভারতের সামনে তাই আন্ডারডগ হিসেবেই খেলতে নামছে নিউজিল্যান্ড। টিম ইন্ডিয়া থেকে ব্ল্যাক ক্যাপসদের পিছিয়ে থাকার আরও কারণ কাছে। যেখানে প্রথম পর্বে ভারত হেরেছে মাত্র ১ ম্যাচে। সেখানে প্রথম পর্বে নিজেদের শেষ ৩ ম্যাচেই জয়ের মুখ দেখেনি নিউজিল্যান্ড। দলের মধ্যে তাই অস্বস্তির হাওয়া। টানা হারে এখন অনেকটা ব্যাকফুটে কিউইরা।
সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের অতীতও খুব একটা সুখকর নয়। এখন পর্যন্ত ৭ বার সেমিফাইনালে উঠলেও তাদের জয় মাত্র ১ বার। গত বিশ্বকাপে ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকাকে দুর্দান্ত এক ম্যাচে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল কিউইরা।
এর আগে, ৬ বারের ৬ বারই অবশ্য তারা হেরে বিদায় নেয় টুর্নামেন্ট থেকে। এ কারণে সেমিফাইনালের দল তকমাটা গায়ে এঁটে যায় নিউজিল্যান্ডের। এদিকে কিউইদের চেয়ে ১ কম ৬ বার বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলেছে ভারত। তাদের সাফল্য-ব্যর্থতার অনুপাত সমান। জয় এসেছে ৩ বার, হারও সমসংখ্যক ম্যাচে।
তবে এত সমীকরণ ছাপিয়ে এখন দুই দলের ভক্ত-সমর্থকদের কপালে চিন্তায় ছাপ আর মুখে প্রশ্ন-মাঠে গড়াবে তো বহুল আকাঙ্ক্ষিত এই সেমিফাইনাল ম্যাচ? তাদের দুশ্চিন্তার কারণ ম্যানচেস্টারের আবহাওয়া। জানা গেছে, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। তবে স্বস্তির সংবাদও আছে। বৃষ্টি বাগড়ায় যদি সত্যিই ম্যাচ মাঠে গড়াতে না পারে তবে আগামীকাল বুধবার রিজার্ভ ডেতে ফের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।
আবহাওয়ার চরিত্র ভাবাচ্ছে ভারত-নিউজিল্যান্ডকেও। বৃষ্টি হলে যা করা দরকার, বৃষ্টি না হলে যা করা দরকার- এসব পরিকল্পনা সাজাতে ব্যস্ত দু'দলের টিম ম্যানেজমেন্ট। এ বিষয়টি বাদেও ভাবনার অনেক জায়গা আছে নিউজিল্যান্ডের। এই যেমন তাদের দলের ব্যাটসম্যানরা একেবারেই ছন্দে নেই। বিশেষ করে দলের উদ্বোধনী জুটি পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই ফ্লপ। আগের বিশ্বকাপে রান ফোয়ারা ছোটানো মার্টিন গাপটিল আসর জুড়েই দিয়েছেন ব্যর্থতার পরিচয়।
যেখানে ভারতের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের পুরো টুর্নামেন্টে সেঞ্চুরি ৬টি, সেখানে ১টিও বড় ইনিংস নেই দুই কিউই ওপেনারের। তবে টুকিটাকি সমস্যা আছে ভারতীয় শিবিরেও। টপ-অর্ডার আর পেস বোলাররা মনঃপুত পারফরম্যান্স করলেও, মিডল অর্ডার আর স্পিন বোলিংয়ে সুবিধা করতে না পারা বিরাট কোহলির কপালে সামান্য হলেও চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে।

কোন মন্তব্য নেই