× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেলপথের ২২টি লেভেলক্রসিং অরক্ষিত

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদক- 
ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেলপথের ২২টি পয়েন্টে লেভেলক্রসিং অরক্ষিত রয়েছে। এসব স্থানে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটে। গত সোমবার সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার সলপ বেতকান্দি লেভেলক্রসিংয়ে এমনই এক দুর্ঘটনায় ১২ জন প্রাণ হারায়। ওই দিন সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ-রাজশাহী রেলপথের সলপ লেভেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সামনে ধাক্কা লাগে। এ সময় মাইক্রোবাসটি ট্রেনের ইঞ্জিনের সঙ্গে আটকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে গিয়ে লাইনের ওপর পড়ে। তাতে বর-কনেসহ মাইক্রোবাসের ৯ জন ঘটনাস্থলে এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরো তিনজনের মৃত্যু হয়। এর আগে গত তিন বছরে শুধু সলপ লেভেলক্রসিংয়ে ২৬ জনের প্রাণহানি ঘটে।

গত মঙ্গলবার সকালে ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেলপথের ২২টি অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি ঘুরে জানা যায়, দীর্ঘদিন হলো এসব লেভেলক্রসিং অরক্ষিত অবস্থায় থাকলেও এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। বেশ কয়েকটি অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ের মধ্যে রয়েছে সিরাজগঞ্জ সদরের হরিপুর, ঝাঐল চান্দপুর, কামারখন্দের চালা সাবাসপুর, হালুয়াকান্দি, জামতৈল কলেজপাড়া, বারাকান্দি ও সলপ বেতকান্দি। জামতৈল কলেজপাড়া এলাকার নিয়ামত হোসেন জানান, লেভেলক্রসিংটি অরক্ষিত হওয়ায় মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় সূত্র জানায়, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ ৯৫ দশমিক ৩০ কিলোমিটার রেলপথে ২২টি লেভেলক্রসিং অরক্ষিত। এ লেভেলক্রসিংগুলো অতিক্রম করাকে কেন্দ্র করে প্রায় প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটছে। যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ভ্যানসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন ও পথচারী এই ক্রসিং অতিক্রম করতে গিয়ে দুর্ঘটনাকবলিত হচ্ছে। গত তিন বছরে মাত্র সলপ লেভেলক্রসিংয়ে ২৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে গত সোমবারই বর-কনেসহ ১০ জন প্রাণ হারায়। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং রেল কর্তৃপক্ষের মধ্যে সমন্বয়ের অভাবে এসব দুর্ঘটনা ঘটছে বলে মনে করেন তারা।

এ ব্যাপারে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ আরিফুল ইসলাম বলেন, সড়ক নির্মাণ কর্তৃপক্ষ ইচ্ছামতো নতুন সড়কগুলো রেললাইনের ওপর তুলে দিচ্ছে। রেল বিভাগ না জানার কারণে সেসব ক্রসিং নিরাপদ করতে জনবল নিয়োগসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারছে না।

তিনি জানান, সিরাজগঞ্জ-ঈশ্বরদী রেলপথে বর্তমানে ৪৪টি লেভেলক্রসিং রয়েছে। সম্প্রতি ১৭টি ক্রসিংয়ে নতুন জনবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর আগে পাঁচটি ক্রসিংয়ে লোকবল ছিল। এখনো ২২টি ক্রসিংয়ে কোনো লোকবল নেই।

এ নিয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিরাজগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘সারা দেশের মতো সিরাজগঞ্জেরও বিভিন্ন স্থানে পাকা সড়ক তৈরি করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় কোথাও কোথাও রেল বিভাগের অনুমোদন নিয়ে রেলের জায়গা এবং রেললাইন অতিক্রম করে সড়ক তৈরি করা হচ্ছে।’

কোন মন্তব্য নেই