× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদী থেকে নিখোঁজ এনজিও কর্মী শাহাদতের পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন এবি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার। পাশে শাহাদতের ছবি হাতে দাঁড়িয়ে আছেন তাঁর মা মরিয়ম বেগম।  
ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 
বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা নিউ এরা ফাউন্ডেশনের মাঠ কর্মকর্তা শাহাদত হোসেনের  (৪৫)  নিখোঁজের ৭ দিন পরেও তাঁর  কোন সন্ধান না পাওয়ায় পরিবার ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে  সংবাদ সম্মেলন করা হয়। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি)  লালপুর উপজেলার  এবি ইউনিয়নের শ্রীরামগাড়ি নিখোঁজ শাহাদত হোসেনের নিজ বাড়িতে আয়োজিত  এ সংবাদ সম্মেলনে  জনপ্রতিনিধি,পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন। 

সংবাদ  সম্মেলনে শাহাদতের ভাই শুকুর আলী বলেন,  রবিবার (২ ফেব্রুয়ারি) নিউ এরা ফাউন্ডেশনের ঈশ্বরদীর ঢুলটি শাখা থেকে  কিস্তি তোলার জন্য বের হয়ে শাহাদত হোসেন আর অফিসে ফিরে আসেনি বলে নিউ এরা’র চার কর্মকর্তা  ওই দিন সন্ধ্যায় আমাদের বাড়িতে এসে জানান। ঘটনাটি জানার পর আত্মীয়স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল জায়গার খোঁজ নিয়েছি এবং ওই রাতেই  জিডি করার জন্য ঈশ্বরদী থানায় যাই।  এরপর আমরা দফায় দফায় নিউ এরা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক, প্রকল্প সমন্বয়কারী কর্মকর্তা ও এরিয়া ম্যানেজারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা শুধু তাদের টাকার কথায় বলছে। শাহাদত নিখোঁজের বিষয়টি তারা মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে  গুরুত্ব  সহকারে দেখছে না। শাহাদতের ব্যবহৃত মটর সা্ইকেল নিউ এরার অভিযোগের ভিত্তিতে দাশুড়িয়া থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। কোন মাঠ কর্মকর্তা কিস্তি তুলতে গেলে তাঁর ব্যাগ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে যান কিন্তু শাহাদতের ব্যাগ অফিসেই ছিল। তাহলে সে কিস্তি তুলতে গেল কিভাবে?। 

তিনি আরো বলেন্, আমার ভাই একজন নিরীহ ও শান্ত প্রকৃতির মানুষ। শাহাদত ও মা দু’জনই  ছিল সংসারে । মাসে তাদের অল্প খবর হতো। বেতনের অধিকাংশ টাকা সে নিউএরার ফান্ডেই জমা রাখতো এবং সেখানে তার একটি ডিপিএস ছিল। শাহাদতের চিন্তায় আমার বৃদ্ধা মা খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন। বার বার অজ্ঞান হয়ে পরছেন। শাহাদতের সন্ধান পাওয়া না গেলে আমার মাকেও বাঁচানো যাবে না। শাহাদতের নিখোঁজ হওয়ার  পেছনে নিউ  এরা ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা জড়িত আছে বলে আমি মনে করি। আমরা এ ব্যাপারে আইনের আশ্রয় নিবো। 

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন এবি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সাত্তার, সাবেক চেয়ারম্যান আবেদ আলী, লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল করিম। 


এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন শাহাদতের মা মরিয়ম বেগম, ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান, সাবেক ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমান, আওয়ামী লীগ  নেতা আলহাজ্ব আব্দুর রউফ, আওয়ামী লীগ নেতা শামসুল আলম, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হানিফসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। 

নিখোঁজ শাহাদত হোসেন। 
নিউ এরা ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক মোস্তাক আহমেদ কিরণ বলেনশাহাদতের নিখোঁজের বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে  শাহাদতের কাছে নগদ ১ লাখ ৬২ হাজার ৪৯৫ টাকা ছিল। এছাড়াও তাঁর অফিসিয়ালের লেনদেনের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে  শাহাদত পালিয়েছে এ  বিষয়ে আমরা অনেকটাই নিশ্চিত। সময় হলেই সব সত্য পরিস্কার হয়ে যাবে বলে আশা করছি। 

সংবাদ সম্মেলনে শাহাদতের ভাই শুকুর আলীর অভিযোগ  প্রসঙ্গে মোস্তাক আহমেদ কিরণ  বলেন,  তাঁর ভাই নিখোঁজ রয়েছে। সে আইনের আশ্রয় নিতেই পারে। নিউ এরা ফাউন্ডেশন আইনী প্রক্রিয়ায় তা মোকাবেলা করবে। 

কোন মন্তব্য নেই