× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



করোনাভাইরাস : দেশের গত ৬ দিনের পরিসংখ্যান



গত ৬ এপ্রিল থেকে দেশ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকলেও আজ ১১ এপ্রিল
কিছুটা কমেছে আক্রান্তের সংখ্যা। 

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর একটি চার্টের মাধ্যমে দেশের গত ৬ দিনের করোনাভাইরাসের পরিস্থিত তুলে ধরেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আইইডিসিআরের তথ্য মতে ৬ এপ্রিল দেশের করোনা শনাক্ত হয় ৩৫ জনের দেশে এবং করোনাভাইরাসে মারা যায় ৩ জন, ৭ এপ্রিল শনাক্ত হয় ৪১ জন, মৃত্যু হয় ৫ জনের এবং সুস্থ হয় আরো ৩ জন, ৮ এপ্রিল শনাক্তের সংখ্যা ৫৪ জন, মারা যায় ৩ জন, ৯ এপ্রিল এক লাফে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় ১১২ জন, মৃত্যু হয় ১ জনে, এর পরদিন শনাক্তের সংখ্যা কিছুটা কমলেও বাড়ে মৃত্যুর সংখ্যা অর্থাৎ ১০ এপ্রিল কিছুটা কমে ৯৪ জন করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয় এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৬ জন হয়। 

সর্বশেষ তথ্য মতে আজ ১১ এপ্রিল ৫৮ জনের দেশে মেলে করোনা ভাইরাস এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৩ জন। এনিয়ে দেশে ৮মার্চ থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ৪৮২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছে মোট ৩৬ জন, মারা গেছেন মোট ৩০ জন।

১১ শনিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক অনলাইন ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশের সর্বশেষ ২৪ ঘন্টার পরিস্থিতি জানান। অনলাইনে বুলেটিন উপস্থাপনকালে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। নিজের বাসা থেকে এতে যুক্ত হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এবং আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, নতুন শনাক্ত ও মৃত্যুর তথ্য আমরা ইতোমধ্যেই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মাধ্যমে জেনেছি। যে ৫৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে পুরুষ ৪৮ জন, নারী ১০ জন। সর্বোচ্চ ১৪ জনই ঢাকার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮ জন নারায়ণগঞ্জের। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও তিনজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ নিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৩৬ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুস্থ হওয়ার তিনজনের মধ্যে দুজন পুরুষ এবং একজন নারী। তাদের বয়স যথাক্রমে ২৬, ৫৭ ও ৫৫ বছর।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, আমাদের মোট আক্রান্ত ৪৮২ জনের মধ্যে ৫২ শতাংশই ঢাকা মহানগরীর। মহানগরী বাদ দিয়ে ঢাকা বিভাগে আক্রান্ত ৩৫ শতাংশ। অবশিষ্ট ১৩ শতাংশ দেশের অন্যান্য বিভাগের।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে স্বাভাবিক জীবন থমকে দাঁড়িয়েছে। আগামী কয়েকটা দিন কষ্ট করুন। সময়ের এক ফোঁড় অসময়ের দশ ফোঁড়।

আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন কার্যকর করতে জনগণকে ঘরে থেকে সুস্থ থাকতে অনুরোধও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

কোন মন্তব্য নেই