× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



লকডাউনের ঈশ্বরদীতে বিকাল হলেই আকশে বসে ঘুড়ির মেলা

অপুর্ব চৌধুরী/ইতিহাস টুয়েন্টিফোর-
যান্ত্রিকতার যুগে আমাদের প্রিয় শহরগুলো শহর প্রাণ হায়িয়েছে অনেক আগেই। স্মার্ট হতে হতে এখন লুডো, দাবা, ক্যারামের মতো ঘরোয়া খেলাগুলোও মানুষ স্মার্ট ফোনে অনলাইন খেলে। কিন্তু এই যান্ত্রিক জীবনের লাগাম টেনে ধরেছে করোনা ভাইরাস। পুরোপৃথিবীকে নিস্তব্ধ করে দিয়েছে। দূষণ কমিয়ে দিয়েছে। ঘর বন্দি করে ফেলেছে মানুষকে। সেই প্রভাব থেকে রক্ষা পায়নি আমাদের বাংলাদেশও। ৪২ দিন টানা বন্ধ পুরো দেশ। একস্থান থেকে অন্যস্থানে চলাচল নিষিদ্ধ। কিন্তু ঘরবন্দি দশা আর কত? এই ঘর বন্দি দশা থেকে মুক্তি মেলে একমাত্র বাড়ির ছাদে। পরিবারের সাথে বিকালে ছাদে বসে সময় কাটানোটা অনেকটা মুক্তি দেয় এই ঘরবন্দি জীবনকে।

আর সেই সুযোগে ঈশ্বরদীর আকাশে বিকাল হলেই বসে ঘুড়ির মেলা। রং-বেরঙের ঘুড়ি আকাশে উড়ে বেড়ায় বিকালজুড়ে। ঈশ্বরদীর বিভিন্ন স্থানে বাসাবাড়ির ছাদ থেকে ঘুড়ি ওড়াতে দেখা যায়। 
ঘুড়ি ওড়ানোর লাটাই। ছবি- ইমরুল কায়েস।

ছোট, বড় সকল বয়সের মানুষকেই এই ছুটির বিকালে ঘুড়ি ওড়াতে দেখা যায়। ঘুড়ি ওড়ানোর বিষয়ে পল্লব কর্মকার নামে একজন ইতিহাস টুয়েন্টিফোরকে বলেন, আমাদের ছোট/সমবয়সী অনেকেই পড়াশোনা অথবা অন্যান্য পেশাগত কাজে ঈশ্বরদীর বাইরে থাকে। করোনার প্রভাবে সবকিছু বন্ধ তাই সকলে এখন নিজ বাসায়। এমন ছুটির সময় কখনোই মেলে না। আর যখন এত ছুটি তখন সারাদিন ঘরের ভেতরে থাকাটাও বিরক্তিকর। কিন্তু বাইরে যাওয়াও তো নিষেধ। তাই বিকাল হলে যার যার বাসার ছাদ থেকে অনেকেই ঘুড়ি ওড়ায় সময় কাটানোর জন্য।

প্রায় প্রতিদিনই ঈশ্বরদীর বিভিন্ন এলাকার আকশে ঘুড়ি উড়তে দেখা যায়। নিজ নিজ বাড়ির ছাদের ঘুড়ি ওড়ানোর কারণে বিকাল হলে ঈশ্বরদীর অনেক এলাকার রাস্তায় মানুষ তুলনামূলক অনেক কম থাকে, ফলে একালায় আড্ডাও তেমন চোখে পড়েনা।  
ঘুড়ি ওড়াচ্ছে একজন তরুন, ইনডেস্কে একজন শিশু ঘুড়ি ওড়ানোর চেষ্টা করছে। ছবি- ফেসবুক।

কোন মন্তব্য নেই