× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



সামাজিক দূরত্ব না মেনেই হাওরে ধান কাটলেন মন্ত্রী-এমপিরা

দেশব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকির মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখেই সুনামগঞ্জের হাওরে ধান কাটায় অংশ নিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও স্থানীয় সংসদীয় আসনের তিন সংসদ সদস্য। তারা বলছেন, শুরুতে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকলেও উৎসুক জনতার কারণে পরে সেটি সম্ভব হয়নি।

বুধবার (২৯ এপ্রিল) সকালে গাড়িবহর নিয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ডুংরিয়া গ্রামের সাংহাইর হাওরে ধান কাটা পর্যবেক্ষণ ও পরিদর্শন করতে যান তারা।   

দুই মন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন- সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তা ও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য শামীমা শাহরিয়ার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবীর ইমনসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতকর্মীরা।

এছাড়া, জেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয়রা বলছেন, ধান কাটার সময় মন্ত্রী-এমপি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি মানেননি।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়া ও কিছুক্ষণ পরপর সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার কথা বলছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

কিন্তু, এদিন হাওরে মন্ত্রী-এমপিদের ধান কাটা পরিদর্শন উপলক্ষে ব্যাপক জনসমাগম হয়। তখন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা হয়নি।   

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কৃষিমন্ত্রী স্থানীয় দুই কৃষকের হাতে ধানকাটা মেশিনের চাবি হস্তান্তর করেন। হাওরের মাঠে পুলিশ সদস্যরা সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার জন্য বারবার হ্যান্ডমাইকে ঘোষণা দিলেও উৎসুক জনতা ভ্রুক্ষেপ করেনি।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন মো. শামছ উদ্দিন জানান, মন্ত্রীর সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত না করার বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করবেন না।

তবে ধান কাটার সময় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বলেন, আমরা সামাজিক দূরত্ব মেনে হাওরে ধান কাটতে যাই। কিন্তু জনগন সে দূরত্ব রক্ষা করতে পারেননি। তারাও আমাদের সঙ্গে হাওরে ধান কাটতে চলে এসেছে। হাওরে কোনো ডিসিপ্লিন ছিল না। যে যেভাবে পেরেছেন, সেভাবেই ধান কাটতে এসেছেন।

তিনি আরও বলেন, সংবাদকর্মীরাও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলেননি।

নিয়ন্ত্রণের জন্য চেষ্টা করা হলেও পুরোপুরি সম্ভব হয়নি।

আরেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসন রতন বলেন, শুরুতে সামাজিক দূরত্ব বজায় ছিল। পরে উৎসুক জনতা যোগ দেওয়ায় সামাজিক দূরত্ব কিছুটা বিনষ্ট হয়েছে। 

কোন মন্তব্য নেই