× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



আধুনিক ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া গড়তে চান জিরু


ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদক ঃ 
ব্যারিস্টার সৈয়দ আলী জিরু পরিকল্পিত ও আধুনিক ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া গড়তে চান। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য সৈয়দ আলী জিরু লন্ডনে পড়াশুনা করেছেন ও ২০টি দেশ সফর করেছেন তাঁর এই দেশ সফরের অভিজ্ঞতা ও বিভিন্ন দেশে তাঁর বন্ধুদের সঙ্গে পরামর্শ ও তাদের সহযোগিতা সুন্দর,পরিকল্পিত বাসযোগ্য একটি আধুনিক ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া তিনি গড়তে চান।

গত সোমবার ইতিহাস টুয়েন্টিফোরের সঙ্গে মুঠোফোনে আলাপকালে ব্যারিস্টার  সৈয়দ আলী জিরু বলেন, ৩৩ বছর ধরে রাজনীতি করি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্যসহ ছাত্রলীগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছি। পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির দায়িত্ব পালন করছি। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে রাজনীতিকে কখনও অর্থ আয়ের উৎস হিসেবে ব্যবহার করিনি। সৎ পথে আয় করে জীবন নির্বাহ করি। সবসময় মানুষের কল্যাণ ও সেবা করে চলেছি।

সাবেক ছাত্রনেতা জিরু বলেন, আমরা পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। আমাদের বংশের গর্বিত সন্তান ফকির মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম ঈশ্বরদীতে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। আমাদের বংশ বা পরিবারের কেউ কখনও সন্ত্রাসী বা অন্যায় কোন কাজের সঙ্গে জড়িত ছিল না। আমরা মানুষের সেবা করেছি এবং এখনও করছি। আমি সবসময় দূর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস মুক্ত ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া গড়া আমার স্বপ্ন দেখেছি। ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ায় সুশাসন প্রতিষ্ঠা,মানুষের অধিকার বাস্তবায়ন ও উন্নয়নের যে স্বপ্ন আমি দেখি তা এখানকার মানুষের কল্যাণ ও সেবার জন্যই।

ব্যারিস্টার জিরু আরো বলেন, উপ-নির্বাচনে আমি এ আসনের মনোনয়ন অবশ্যই চাইবো। ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার মানুষ যদি আমাকে তাদের সেবক হিসেবে মনোনীত করতে চান তাহলে  জননেত্রী শেখ হাসিনা নিকট এই বার্তা অবশ্যই পৌঁছে যাবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে নির্দেশনা দিবেন সেটাই আমি মেনে নিবো। রাজনীতির মাধ্যমে মানুষের সেবা করবো ভেবেই দেশ-বিদেশে অনেক ভাল চাকরির সুযোগ পেয়েও তা করিনি। সবসময় ভালবাসা ও ভাললাগার প্রিয় ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার মানুষের কাছে বার বার ছুটে আসি। আজীবন প্রিয় এই মানুষদের সেবা করে যেতে চাই।

কোন মন্তব্য নেই