× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে মনোনয়ন চাইবেন বর্ষিয়ান আ’লীগ নেতা নায়েব বিশ্বাস

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদক- 
মুজিব অন্তপ্রাণ আলহাজ্ব মোঃ নায়েব আলী বিশ্বাস সারাটি জীবন আওয়ামী রাজনীতির জন্য নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন। দল থেকে নেননি কিছুই। দলের শত শত কর্মী আর নেতা তৈরির কারিগর নায়েব আলী বিশ্বাস ৭০ বছর বয়সের ৫৫ বছরই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নিজেকে সর্বদা নিয়োজিত রেখেছেন। বর্তমানে তিনি ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। 

ঈশ্বরদীর ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ঈশ্বরদীতে প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলনকারী আলহাজ্ব নায়েব বিশ্বাস তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কখনও জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের জন্য দলের কাছে মনোনয়ন চাননি। জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে যে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন তাঁর পক্ষেই মনপ্রাণ উজার করে দিয়ে নির্বাচনের প্রচারণায় নেমেছেন।  জীবনের এই প্রান্তে এসে তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার মনোবাসনা ব্যক্ত করেছেন। আগামী জাতীয় সংসদ উপনির্বাচনে নির্বাচনে পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনে তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী।  

মহান মুক্তিযুদ্ধের অকুতোভয় সৈনিক নায়েব আলী বিশ্বাস  ১৯৫৫ সালে সাড়া মাড়োয়ারি স্কুলে পড়া অবস্থায় তিনি ছাত্রলীগের সদস্য হিসেবে যোগ দেন। এরপর ঈশ্বরদীর কলেজ ছাত্রলীগ, উপজেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দেন। এছাড়াও তিনি  ১৯৬২ সালের শিক্ষা কমিশনের আন্দোলন, ৬৬’র ছয়দফা আন্দোলন, ৬৯ গণঅভ্যূত্থান ও ১৯৭০ সালের নির্বাচনে  দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। 

সুদীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে নায়েব বিশ্বাস কখনও দলের ভাগবাটোয়ারা ও অবৈধ অর্থবিত্তের কাছে কাছে মাথা নত করেননি। কোন লোভ-লালসা তাকে স্পর্শ করতে পারেনি। বরং  দলের দুঃসময়ে নিজের টাকা  খরচ করে দলের সাংগঠনিক কর্মকান্ড চালিয়েছেন। তিনি কখনও সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজকে প্রশ্রয় দেননি।  দলের নাম ভাঙ্গিয়ে যারা অবৈধ কর্মকান্ড করেছেন তাদের প্রকাশ্যেই ধিক্কার জানিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। তিনি স্পষ্টবাদী, সরলমনা, সাবলীন ও সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে  সর্বমহলে পরিচিত।   

আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান নেতা নায়েব বিশ্বাস বলেন, করোনা মহামারীর কারণে দেশের মানুষ দুঃসময় অতিবাহিত করছেন। ইনশাল্লাহ আল্লাহর রহমতে আমরা শীঘ্রই এই মহাদুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে পারবো বলে আশাকরছি। করোনা পরিস্থিতির কারণে এ আসনের উপ-নির্বাচনে পরিবেশ এখনো সৃষ্টি হয়নি। তবুও নির্বাচনের বিষয়াদি নিয়ে রাজনৈতিক মহলে নানা আলোচনা চলছে এবং আপনারাও (সাংবাদিকরা) জানতে চাচ্ছেন তাই বলছি,  সাবেক ভূমি মন্ত্রী ও পাবনা জেলা 

আওয়ামীলীগের সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু ভাই আমাদের শ্রদ্ধাভাজন নেতা ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। সারাজীবন আওয়ামী লীগ করেছি কখনও দলের কাছে কিছু চাইনি। এবার উপ-নির্বাচনে মনোনয়ন চাইবো। জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিলে আমি নির্বাচন করবো। আমাকে না দিলে তিনি যাকে মনোনয়ন দিবেন তাঁর পক্ষেই কাজ করে নৌকা বিজয় নিশ্চিত করবো ইনশাল্লাহ। কারণ সারাজীবন নৌকার সঙ্গে ছিলাম, জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত  আল­াহর রহমতে নৌকার সঙ্গেই থাকবো।  

কোন মন্তব্য নেই