× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



দোকান-শপিংমল খোলা রাখা যাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত

রোজার ঈদকে সামনে রেখে আগামী ১০ মে থেকে দেশের সব দোকান-পাট ও শপিং মল খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। সোমবার (৪ মে) সন্ধ্যায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিকে বেশ কয়েকটি শর্ত মেনে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সারাদেশের শপিং মলগুলো খোলা রাখা যাবে জানিয়ে জননিরাপত্তা বিভাগ, সুরক্ষা সেবা বিভাগ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সব বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকদের সোমবার নির্দেশনা পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

তবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রজ্ঞাপনে একই ব্যক্তির স্বাক্ষরে তিনটি আলাদা আলাদা প্রজ্ঞাপন জারি এবং তিনটিতে তিন রকম নির্দেশনা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. ছাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনে জানানো হয় শপিংমল আগামী ৫ মে খোলা হবে, একটায় বলা হয় ১০ মে। আরেকটায় বলা হচ্ছে মার্কেট বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে অপরটিতে বলা হচ্ছে ৪টা পর্যন্ত।

তবে শেষ পর্যন্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ওয়েবসাইটে ১০ তারিখে এবং বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলার বিষয়টি জানানো হযেছে।

এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম-সচিব (জেলা ও মাঠ প্রশাসন অধিশাখা) মো. মুশফিকুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, আগের আদেশে বিকাল ৫টা পর্যন্ত শপিংমল খোলা রাখার কথা বলা হলেও সেটা বিকাল ৪টা পর্যন্ত করা হয়েছে।

শপিংমল খোলা রাখতে ব্যবসায়ীদের যেসকল শর্ত মানতে হবে-

১. বড় শপিং মলের প্রবেশমুখে হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা ও স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে।


২. শপিং মলে আসা যানবাহনকে অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

৩. বেচাকেনার সময় ক্রেতা-বিক্রেতাদের পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

৪. দোকানপাট এবং শপিং মল বিকাল ৪টার মধ্যে অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।

এর আগে করোনাভাইরাসের কারণে সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সব অফিস আদালত বন্ধ ঘোষণা করে। সেই সঙ্গে সারা দেশে সব ধরনের যানবাহন চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা জারি হয়, শপিং মলও বন্ধ রাখতে বলা হয়। ছুটি বাড়ার সঙ্গে ব‌্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন‌্যও একই সিদ্ধান্ত বহাল থাকে।

তবে ঈদ-উল ফিতর সামনে রেখে কয়েকটি শর্ত মেনে মার্কেট-শপিংমল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, কেনাবেচার সময় সামাজিক (পারস্পরিক) দূরত্ব বজায় রাখাসহ সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বড় বড় শপিংমলের প্রবেশমুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করতে হবে।

কোন মন্তব্য নেই