× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



পাবনায় সরকারি নির্দেশ অমান্য করে রোববার খুলছে পাবিপ্রবি

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে রোববার খুলে দেওয়া হচ্ছে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

শনিবার এটির উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলীর নির্দেশে অতিরিক্ত রেজিস্টার বিজয় কুমার ব্রহ্ম সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।

অতিরিক্ত রেজিষ্ট্রার বিজন কুমার বলেন, “ভিসি স্যারের নির্দেশে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় খোলার নোটিশ করেছেন। “

গত ২৮ মে এক প্রজ্ঞাপনে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন জানায়, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের নির্দেশনা অনুসারে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন সরকারি ও বেসরকারি সব বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ও ডিসট্যান্স ক্লাস ছাড়া যাবতীয় কার্যক্রম পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। 

প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সচিব ড. ফেরদৌস জামান বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় মন্ত্রী পরিষদ সচিব বিভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত দিয়েছে। আমরা শুধুমাত্র তা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে জানিয়েছি।

“নির্দেশনা না মেনে পাবিপ্রবি খোলা হলে তা সেটা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাকে অবজ্ঞা ও অমান্য করার শামিল। এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার পাবিপ্রবি প্রশাসনের নেই।”

তবে এই খোলার ব্যাপারে আপত্তি রয়েছে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের।

পাবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, জীবাণুনাশক টানেল কিংবা স্বাস্থ্যবিধির কোনো প্রস্তুতি না নিয়েই হঠাৎ করেই রোববার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে প্রশাসন।
“আমরা প্রতিবাদ জানিয়ে উপাচার্য মহোদয়কে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার অনুরোধ জানিয়েছি। কিন্তু, তিনি তা মানছেন না।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানান, সংক্রমণ প্রতিরোধে হাজী দানেশ বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয় ইউজিসির নির্দেশনা অনুযায়ী ১৫ জুন পর্যন্ত একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে। পাবিপ্রবিতে কী এমন বিশেষ প্রয়োজন পড়ল তা খতিয়ে দেখলে বিশ্ববিদ্যালয় খুলতে প্রশাসনের একগুঁয়েমির কারণ জানা যাবে।

অভিযোগ রয়েছে- বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পের প্রায় ৬০ কোটি টাকা চলতি অর্থ বছরে ছাড় হয়েছে। যার মাত্র পাঁচ থেকে ছয় কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। বাকি টাকা জুন ফাইনালের মধ্যে বিভিন্ন প্রকল্প দেখিয়ে খরচ করতেই সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে খোলার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

তবে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক রোস্তম আলী দাবি করেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনাটি সঠিক নয়।

“ঢাকা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ও সীমিত পরিসরে খুলছে। জরুরি কিছু প্রশাসনিক কাজ থাকায় অফিস খোলা হচ্ছে।

উন্নয়ন প্রকল্পের অব্যবহৃত ৬০ কোটি টাকা খরচ করতেই বিশ্ববিদ্যালয় খুলছেন কি-না প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “বিষয়টি সঠিক নয়।”

কোন মন্তব্য নেই