× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



নাসিমের জন্য কাঁদছেন সিরাজগঞ্জের নেতাকর্মীরা

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুর খবরে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শনিবার (১৩ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে নেতাকর্মীরা সিরাজগঞ্জ শহরের এস এস রোডে অবস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জড়ো হতে থাকেন। অল্প সময়ের মধ্যে কানায় কানায় পূর্ণ হতে থাকে কার্যালয়সহ পুরো সড়ক। এ সময় উচ্চ কণ্ঠে ভেসে আসতে থাকে কান্না ও নেতাকর্মীদের আহাজারি।

সিরাজগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. দানিউল হক মোল্লা কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমরা সিরাজগঞ্জবাসী তথা উত্তরবঙ্গবাসী আমাদের প্রাণ প্রিয় নেতা মোহাম্মদ নাসিমকে হারালাম। তিনি আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক ছিলেন। তিনি চলে যাওয়ায় আমরা মেরুদণ্ডহীন হয়ে পড়লাম।

সিরাজগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জিহাদ আল ইসলাম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, মোহাম্মদ নামিমের মতো রাজনৈতিক নেতাকে হারিয়ে আমরা সিরাজগঞ্জবাসী অভিভাবকহীন হয়ে পড়লাম। আমরা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছি না, তিনি আর নেই।

এর আগে শ্বাসকষ্ট নিয়ে গত ১ জুন শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তির পরে করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে মোহাম্মদ নাসিমের। এরপর গত ৫ জুন ভোররাতে ব্রেন স্ট্রোক হয় তার। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. রাজিউল হকের নেতৃত্বে অস্ত্রোপচার হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে প্রধান করে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

অস্ত্রোপচারের পর থেকেই গভীর অচেতন অবস্থায় ছিলেন মোহাম্মদ নাসিম। ভেন্টিলেশন মেশিনের সাহায্যে তিনি কৃত্রিমভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছিলেন।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য ও প্রখ্যাত নিউরোসার্জন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার নেতৃত্বে গঠিত ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল আওয়ামী লীগের এই বর্ষীয়ান নেতাকে। পরে দুই দফা তার করোনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসে। তবে অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্ট রাখা হয়। শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে লাইফ সাপোর্ট থাকা অবস্থায় শনিবার (১৩ জুন) বেলা ১১টার দিকে মোহাম্মদ নাসিম শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

কোন মন্তব্য নেই