× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন, নিজেই বললেন স্বাস্থ্যের ডিজি

কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার কথা নিজের মুখেই জানালেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

বৃহস্পতিবার ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ নামের অ্যাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা জানান।

গত ১২ মে থেকে অধ্যাপক আজাদ কর্মস্থলে  অনুপস্থিত ছিলেন। তিনি অসুস্থ বলে জানানো হলেও তার অসুস্থতা কী, তা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বা মহাপরিচালক কোনো পক্ষেই বলা হয়নি।

ডা. আজাদ বৃহস্পতিবারের অনুষ্ঠানে বলেন, “আমি আপনাদের দোয়ায় সুস্থ হয়ে ফিরে এসেছি। সাধারণত যারা সংক্রমিত হয়, তাদের সবাইকে আমি রোগী বলি না, তারা কোভিড সংক্রমিত ব্যক্তি।

“কিন্তু আমি একজন রোগী ছিলাম এবং আমাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। একজন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর যে অভিজ্ঞতা হয়, সেগুলোও আমি সঞ্চয় করেছি।”

“মানুষকে ব্যক্তিগতভাবে সতর্ক হতে। তবে এটা সত্য, আমরা গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি না কার কোভিড হবে আর কার হবে না,” বলেন এই চিকিৎসক।

করোনাভাইরাস মহামারীর বিস্তার রোধে নাগরিকদের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে একটি অ্যাপ চালু করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ।

ভার্চুয়াল এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাসা থেকে যোগ দেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আজাদ।

গত ১২ মে থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আসছিলেন না আবুল কালাম আজাদ। সে সময় তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, অসুস্থ থাকায় বাড়িতে বিশ্রামে আছেন তিনি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কোভিড-১৯ আক্রান্ত কয়েকটি গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত খবর তখন প্রকাশ হয়েছিল। তবে বিষয়টি নিয়ে কোনো স্পষ্ট ব্যাখ্যা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বা মহাপরিচালক দেননি।

২০ দিন পর গত ১ জুন মহাখালীতে নিজ কার্যালয়ে যান অধ্যাপক আজাদ।

সেদিন  তিনি বলেছিলেন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি।

তবে সেদিনও অসুস্থতার কারণ না জানিয়ে তিনি বলেছিলেন, “আমি সিএমএইচে চিকিৎসা নিয়েছি। এখন আমি সুস্থ আছি। আপনারা দোয়া করবেন।”

কোন মন্তব্য নেই