× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



স্বাস্থ্যসেবা সচিবের করোনা : আইইডিসিআরে পজিটিভ, অন্য তিন ল্যাবে নেগেটিভ

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নানের করোনার নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান থেকে করানো পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। করোনার কোনো ধরনের লক্ষণ-উপসর্গ না থাকায় ওই রিপোর্ট নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় পরে তিনি আরও তিনটি প্রতিষ্ঠান থেকে নমুনা পরীক্ষা করান। কিন্তু পরবর্তী পরীক্ষাগুলোতে তার করোনা নেগেটিভ আসে। প্রথম দফায় পজিটিভ রিপোর্ট আসায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার পূর্বনির্ধারিত একটি বৈঠক বাতিল করা হয়।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গণভবনে গত ১৭ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্যসেবা সচিবসহ মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দলের বৈঠক নির্ধারণ করা ছিল। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের আগে সবার করোনার নমুনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ কারণে সাক্ষাতের আগে ১৫ আগস্ট স্বাস্থ্যসেবা সচিব আইইডিসিআরে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। পরদিন ওই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত বৈঠকটি বাতিল করা হয়। কোনো ধরনের লক্ষণ-উপসর্গ না থাকায় স্বাস্থ্যসেবা সচিবের ওই রিপোর্ট নিয়ে সন্দেহ হয়। ওই দিনই তিনি আইসিডিডিআরবিতে নমুনা দেন। সোমবার ওই পরীক্ষার ফল নেগেটিভ আসে। ওই দিন আবার সচিব সিপসমে নমুনা দেন। তাতেও ফল নেগেটিভ আসে। এএমজেড হাসপাতালে নমুনা দেন। তাতেও ফল নেগেটিভ আসে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান সমকালকে বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তার স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। একইসঙ্গে তার দুই সন্তানও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর তিনি সর্বদা সতর্ক থাকছেন। এছাড়া স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কাজ করতে গিয়ে হাসপাতাল পরিদর্শনসহ চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীসহ অনেকের সংস্পর্শে তাকে যেতে হয়। এরই অংশ হিসেবে তিনি ওইদিন পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছিলেন। কিন্তু ফল পজিটিভ আসে। এরপর আরও তিনটি প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা করান। ওইগুলোতে ফল নেগেটিভ আসে। নমুনা পরীক্ষার পাশাপাশি রক্তের বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষাও করানো হয়। কিন্তু সব পরীক্ষায় যে ফল এসেছে তাতে তিনি করোনায় আক্রান্ত নন বলে জানান সচিব।

ভুল রিপোর্ট আসার বিষয়ে জানতে চেয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তিনি বর্তমানে আইইডিসিআরের পরিচালকেরও দায়িত্বে রয়েছেন। ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, ব্যক্তিগত কারও তথ্য আইইডিসিআর কাউকে জানায় না। তবে ল্যাব সংক্রমিত হয়ে থাকলে করোনার নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্রে ফল পজিটিভ হয়। এছাড়া পজিটিভ ব্যক্তির নমুনার সঙ্গে কোনোভাবে মিশ্রিত হলেও পজিটিভ হয়। কিন্তু আইইডিসিআর ল্যাবে সে ধরনের ঘটনার সুযোগ নেই। এরপরও বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখবেন বলে জানান তিনি।

কোন মন্তব্য নেই