× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



নীরবে-নিভৃতে ঈশ্বরদীর মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 
ঈশ্বরদীর কৃতি সন্তান অধ্যক্ষ আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ। যিনি নীরবে- নিভৃতে ঈশ্বরদীর মানুষের সেবা ও উন্নয়নমূলক কাজে  বিশেষ অবদান রেখে চলেছেন। ঈশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়নের ভাড়ইমারীর গ্রামের সন্তান অধ্যক্ষ আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ শুধু নিজ এলাকাতেই নয় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে  বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।
অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোঁটাতে সদা তৎপর। অসচ্ছল মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে তিনি আত্মতৃপ্তি লাভ করেন। তিনি বরাবরই প্রচারবিমূখ। আড়ালে থেকেই মানুষের উপকারে নিজেকে বিলিয়ে দিচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

ভাড়ইমারীর ঐতিহ্যবাহী মালিথা বংশের সন্তান অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ ১৯৬০ সালের ৪ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম ফকিরউদ্দীন মালিথা ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় একজন সমাজসেবক। পিতার আদর্শে উজ্জিবিত হয়ে অধ্যক্ষ মজিদের জীবনের পরম আরাধনাই হলো মানবসেবা।

তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্সসহ মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুনামের সাথে শিক্ষকতা পেশায় নিজেকে নিয়োজিত রেখে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে নিরন্তর ছুটে চলেছেন দেশ-বিদেশে।

তিনি স্বপ্ন দেখেন আলোকিত ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সমাজের। সেই কল্যাণের পথে নিজের অবস্থান থেকে তিনি কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যেই নিজ এলাকায় সমাজসেবা মূলক বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে এলাকার মানুষের চোখের মণিতে পরিণত হয়েছেন।

আব্দুল মজিদের বড় ভাই অধ্যাপক আব্দুর রশিদ ঢাকা কলেজ এর শিক্ষক ছিলেন। তিনি একজন মুক্তিযুদ্ধের সম্মুখ যোদ্ধা (অধিনায়ক) কালুরঘাট সেক্টর এবং তিনি শহীদ হন। ছোট ভাই ওয়াহিদুজ্জামান পাবনা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার।

এলাকাবাসী জাহিদুল ইসলাম জানান, অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ কর্মজীবনে ঈশ্বরদী মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ, পাবনা, কুমিল্লা ও মোমেন গাড়ি (বর্তমান টাঙ্গাইল মির্জাপুর) ক্যাডেট কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক এবং বিএএফ শাহীন কলেজ চট্টগ্রামে সবচেয়ে কম বয়সে অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আরো বলেন, অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ একজন সমাজসেবক হয়ে মানুষের সেবা করে যেতে চান। অন্যকোন লক্ষ্য বা উদ্দেশ্যে তার নেই। নিজ এলাকার মানুষ ও বিভিন্ন  প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে তিনি আজীবন কাজ করে যেতে চান। 

কোন মন্তব্য নেই