× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



পাবনা জেলার ১৯২ তম ‘জন্মদিন’ আজ


ইতিহাস ‍টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ

পাবনা দেশের অন্যতম প্রাচীন জেলা। পাবনার ১৯২ তম ‘জন্মদিন’ আজ। ১৮২৮ সালের ১৬ অক্টোবর তৎকালীন বৃটিশ সরকারের ৩১২৪ নং স্মারকে পাবনাকে জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

পাবনা জেলার ইতিহাস থেকে জানা যায়, ১৭৯০ সালে বর্তমান পাবনা জেলার একটা বড় অংশ রাজশাহী জেলার অন্তর্ভুক্ত ছিল। ওই সময় জেলার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নতির জন্য ১৮২৮ সালে পাবনায় তৎকালীন পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলার ম্যাজিস্ট্রেট মি. এ ডাব্লিউ মিল্সকে জয়েন্ট ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়।

এর চার বছর পর ১৮৩২ সালে জয়েন্ট ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবর্তে ডেপুটি কালেক্টর নিয়োগের মাধ্যমে পাবনা পূর্ণাঙ্গ জেলার মর্যাদা পায়। ১৮৫৫ সালে ময়মনসিংহ জেলা থেকে সিরাজগঞ্জ থানাকে পৃথক করে পাবনা জেলার অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

১৮৭৮ সালের ১৯ জানুয়ারি পাবনায় প্রথম রেলপথ স্থাপিত হয়। জেলায় প্রথম মোটর সার্ভিসের প্রবর্তন করা হয় ১৯২৬ সালে। ১৯৪০ সালের পর পাবনা শহরে রিকশার প্রচলন ঘটে।

হোসিয়ারী শিল্প, তাঁত শিল্প, কাঁচি শিল্প, বেনারসি-কাতানসহ অন্যান্য শিল্প সমৃদ্ধ এই জেলা এক সময় দেশের অন্যতম বাণিজ্য কেন্দ্র ছিল।

বর্তমানে পাবনা জেলার আয়তন ৩৫১.৫ বর্গ কিলোমিটার। জেলায় উপজেলার সংখ্যা ৯ টি এবং ইউনিয়ন সংখ্যা ৭৩ টি।

২০১০ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী জেলার মোট জনসংখ্যা ছিল ২৪ লাখ ৯৭ হাজার জন। এর মধ্যে পুরুষ ১২ লাখ ৫০ হাজার এবং নারী ১২ লাখ ৪৭ হাজার জন।


কোন মন্তব্য নেই