× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীতে ফুটবল খেলায় সংঘর্ষ, রেফারী ও আয়োজকদের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ


ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 

ঈশ্বরদীতে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে  সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছেন। 

সোমবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে ঈশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়নের ভাড়ইমারী রিয়াজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভাড়ইমারী রিয়াজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মুন্না স্মৃতি ফুটবল টুর্ণামেন্টের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল খেলায় অংশ নেয় ঈশ্বরদী শহরের মধ্য অরণকোলা এলাকার রেডসান স্পোটিং ক্লাব ও বাঁশেরবাদা টলটলি একাদশ। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে খেলা গোল শুন্য থাকায় ট্রাইব্রেকারে খেলার নিস্পত্তির সিদ্ধান্ত হয়। ট্রাইব্রেকারের প্রথমে শটে (কিক) গোল করেন রেডসান ক্লাব। বাঁশেরবাদা টলটলি একাদশের প্রথম শট রেডসানের গোলকিপার রুখে দেন।  কিন্তু খেলার রেফারী বেনু হোসেন (পাবনা ডিএসএ) এই শট পুনরায় দেয়ার ঘোষণা দিলে শুরু হয় উত্তেজনা। একপর্যায়ে দু'পক্ষের মধ্যে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। পরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে  আহত ৬জন আহত হন। আহতদের  প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। 


রেডসান স্পোটিং ক্লাবের অধিনায়ক ইমরান হোসেন বলেন, আমরা ট্রাইব্রেকারের শুরুতেই ১-০ গোলে এগিয়ে যায়। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দের ট্রাইব্রেকারের একটি শর্ট  (কিক) আমাদের গোলকিপার ঠেকিয়ে দিলে রেফারি এই শর্ট বাতিল করে পুনরায় শর্ট করতে বলেন। রেফারীর  পক্ষপাতিত্বমূলক এই আচরণের আমরা প্রতিবাদ জানালে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় ও খেলার আয়োজকরা আমাদের ওপর হামলা চালিয়ে আমাদের ছয়জন খেলোয়াড়কে আহত করেন এবং জার্সি ছিড়ে দেন। আমাদের নিশ্চিত বিজয় ঠেকাতেই রেফারী এই ষড়যন্ত্র করেন। এই রেফারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন খেলায় পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ রয়েছে। 

খেলার আয়োজক কমিটির সদস্য মোঃ মিঠুনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যাপারে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। তিনি বলেন, কমিটির অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে তারপর তিনি এবিষয়ে সাংবাদিকদের জানাবেন। 


কোন মন্তব্য নেই