× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



vvv২৮৫৮২২১৮৫৫৩১

ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ আজ

ইতিহাস ‍টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ

ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ আজ। দলীয় কোন্দল ও প্রার্থী নির্ধারণে দলীয় নেতাদের মতানৈক্যর কারণে ভাটের মাঠে প্রচার-প্রচারণায় সক্রিয় ছিলেন না বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী। আওয়ামী লীগের প্রার্থী একাই দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ভোটের মাঠ চষে বেড়িয়েছেন। উত্তাপহীন এই ভোটের ফলাফল কি হবে তা সাধারণ মানুষ সবাই সহজেই অনুমান করতে পারছেন। বিপুল ভোটে নৌকার বিজয় এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। 

এ নির্বাচনে বড় তিন রাজনৈতিক দলের প্রার্থী  অংশ নিলেও  ভোট নিয়ে খুব একটা উৎসাহী নয় স্থানীয় ভোটাররা। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ভোট কেন্দ্রে যেতে সাধারণ মানুষকে উৎসাহ যুগিয়েছেন।  কিন্তু বিএনপি ও জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের প্রচার-প্রচারণা না থাকায় ভোটের লড়াই হবে না ভেবেই অনেকেই ভোটকেন্দ্রে যেতে আগ্রহী নয়।  

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নায়েব আলী বিশ্বাস, বিএনপির আজমল হোসেন সুজন ও জাতীয় পার্টির শাহেন শাহ গাউসুল আজম প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৫৪ হাজার ৯৭ জন। ভোট কেন্দ্র ৮৪টি। 

স্থানীয়রা বলছেন, নির্বাচন এলেই সবার মধ্যে উৎসব উৎসব ভাব তৈরি হয়। বিভিন্ন দলের প্রার্থী ও নেতাকর্মীরা বাড়িতে এসে কুশল বিনিময় করেন। তারা যেখানেই যান, সেখানেই লোকজন জমায়েত হয়ে সমাবেশের রূপ ধারণ করে। তবে এ উপনির্বাচন নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে তেমন আগ্রহ নেই। এবার আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোনো দলের প্রার্থী বা নেতাকর্মীরা নির্বাচনী প্রচারণায় তেমন অংশ নেননি।  এ কারণে এবার নির্বাচন অনেকটা নি¯প্রভ।

এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল বারী সরদার বলেন, উপনির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী সাধ্যমত প্রচারণার চেষ্টা করেছে। এমনিতেই বিরোধী দল তারপরও দলের কিছু নেতাকর্মী প্রার্থীকে সহযোগিতাও করেনি। নির্বাচন সুষ্ঠু হলে সাধারণ মানুষ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে ধানের শীষের প্রার্থী ব্যাপক ভোট পাবে। 

ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইছাহক আলী মালিথা বলেন, আলহাজ্ব নায়েব আলী বিশ্বাস আওয়ামী লীগের বিশ্বস্ত ও নিবেদিত প্রাণ একজন নেতা। তার জন্য দলের নেতাকর্মীরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। উৎসবমূখর পরিবেশে ভোটকেন্দ্রে সবাই ভোট দিতে আসবেন এবং নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করবেন বলে আশাকরছি। 

নৌকার প্রার্থী আলহাজ্ব নায়েব আলী বিশ্বাস বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় সাধারণ মানুষের স্বতস্ফুর্ত সাঁড়া পেয়েছি। নৌকাকে বিজয়ী করতে দলীয় নেতাকর্মীদের মতো সাধারণ মানুষও ঐক্যবদ্ধ। 

বিএনপির  প্রার্থী আজমল হক সুজন গত মঙ্গলবার বিকালে সময়ের ইতিহাসকে বলেন, এখনও পর্যন্ত নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ রয়েছে। কোন মামলা ও হামলার ঘটনা ঘটেনি। সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত হলে ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে আসবে বলে আশাকরছি। নির্বাচনে ফলাফল প্রসঙ্গে বলেন, ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হলে ধানের শীষের বিজয় হবে। 

জাতীয় পার্টির প্রার্থী গাউসুল আজম বলেন, নির্বাচনের পরিবেশ এখনো পর্যন্ত ভাল রয়েছে। তবে আমার পোলিং এজেন্টরা শংকা প্রকাশ করেছেন ভোটের দিন পরিবেশ সুষ্ঠু থাকবে কিনা। তিনি আরো বলেন, কেউ আমাকে ভয় দেখনোর চেষ্টা করলেও আমি ভীত নই।  ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত থাকবো। 

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রায়হান কুদ্দুস বলেন, নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা চলাকালে কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। ভোট গ্রহণের দিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকবেন। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণের জন্য আমরা সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। 

কোন মন্তব্য নেই