× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ঈশ্বরদীতে দুই ভেজাল মধু বিক্রেতাকে উত্তম-মধ্যম

ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 

ঈশ্বরদীতে ভেজাল মধু বিক্রির অভিযোগে দুইজনকে  উত্তম মধ্যম দিয়েছেন এলাকাবাসী।  

 বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল)  দুপুর ২টায় সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া নুরজাহান বালিকা ‍উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে ভিলেজ ফ্রেশ ফুড  এ্যান্ড এগ্রো কোম্পানীতে এ ঘটনা ঘটে। আটককৃত  ভেজাল মধু বিক্রেতারা হলেন দাশুড়িয়া ইউনিয়নের দাঁদপুর গ্রামের আলম সরদারের দুই ছেলে আল আমিন (২৪) ও আলাল সরদার (১৮)। 

ভিলেজ ফ্রেশ ফুড  এ্যান্ড এগ্রোর স্বত্বাধিকারী জিসান হোসেন জানান, তাঁর প্রতিষ্ঠান মধুসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বাজারজাত করেন। এ প্রতিষ্ঠানে পাইকারী খাটি মধু সরবরাহের জন্য প্রায় এক বছর আগে  চুক্তিবন্ধ হন আল আমিন ও আলাল। প্রথমে খাঁটি মধু সরবরাহ করলেও কিছুদিন পর থেকেই ভেজাল মধু সরবরাহ করতে থাকেন।   গ্রাহকরা  এ ভেজাল মধুর বিষয়ে অভিযোগ দিতে থাকেন। বিষয়টি আলামিন ও আলালকে জানালে তারা নানা তালবাহনা করতে থাকেন। পরর্বতীতে “খাঁটি মধু দেয়ার কথা বলে আবারো ভেজাল মধু দেন। তারা প্রায় ৩০০ কেজি মধু সরবরাহ করেছেন। এরমধ্যে ভেজালের কারণে ১২০ কেজি মধু এখনও অবিক্রিত রয়েছে।  বৃহস্পতিবার আবারো ভেজাল মধু  সরবরাহের জন্য এলে দু’পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির  এক পযায়ে এলাকার লোকজন এসে দু’জনকে আটকে রেখে উত্তম মধ্যম দিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করেন। 

বিকালে আলামিন ও আলালের পরিবার ও এলাকার গণ্যমান্য লোকজন এসে ভেজাল মধুর ক্ষতিপূরণ ও জনসম্মুখে দু'জনকে চরধাপ্পড় দিয়ে বিষয়টি মিমাংসা করে দু'জনকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান। 

কোন মন্তব্য নেই