× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



হেফাজতের মামুনুল হককে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ, সঙ্গে থাকা নারী তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী

না.গঞ্জের রিসোর্টে মামুনুল হককে ঘেরাও, ঘটনাস্থলে পুলিশ

 ইতিহাস টুয়েন্টিফোর ডেস্কঃ 

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের রয়াল রিসোর্টে নারীসহ বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় জনগণের হাতে ধরা পরে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হক। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে মামুনুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দিয়েছে।  মামুনুলের সঙ্গে থাকা আমিনা তৈয়ব নামে ওই নারী তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী বলে প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। 

 শনিবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে তাকে অবরুদ্ধ করা হয়।পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। মামুনুল হকের দাবি, সঙ্গে থাকা নারীর নাম আমিনা তৈয়ব। তিনি মামুনুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী। আমিনাকে সঙ্গে নিয়ে রিসোর্টে ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু  ইতিপূর্বে কেউ জানতেই পারেনি মামুনুলের দ্বিতীয় স্ত্রী রয়েছে। 

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম গণমাধ্যমকে জানান, মামুনুল হক নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানাধীন রয়েল রিসোর্টের একটি কক্ষে নারীসহ অবস্থান করছেন- এমন খবরে স্থানীয় লোকজন রিসোর্ট ঘেরাও করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। মামুনুল হক পুলিশকে জানিয়েছেন, সঙ্গে থাকা নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। পরে পুলিশ তাকে নিরাপত্তা দিয়ে সেখান থেকে উদ্ধার করেছে।

স্থানীয় পুলিশ জানায়, মামুনুল হক সকালে রয়েল রিসোর্টের ৫০১ নম্বর কক্ষটিতে ওঠেন। দুপুর থেকেই এলাকায় চাউর হয় মামুনুল হক এক নারীসহ রিসোর্টে অবস্থান করছেন। এ খবরে এলাকার লোকজন রিসোর্টটি ঘেরাও করে।  পুলিশ মামুনুল হককে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারেন আমিনা তৈয়ব তার দ্বিতীয় স্ত্রী। পরে পুলিশ তাঁকে ছেড়ে দেয়। 

কোন মন্তব্য নেই