× প্রচ্ছদ পাবনা-৪ উপনির্বাচন ঈশ্বরদী পাবনা জাতীয় রাজনীতি আন্তর্জাতিক শিক্ষাজ্ঞন বিনোদন খেলাধূলা বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নির্বাচন কলাম ছবি ভিডিও রূপপুর এনপিপি
Smiley face করোনা ঈশ্বরদী পাবনা বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক খেলা প্রযুক্তি বিনোদন শিক্ষা



ধর্ষনের অভিযোগে সেতু র‌্যাবের হাতে আটক, ঈশ্বরদী থানায় সোপর্দ


ইতিহাস টুয়েন্টিফোর প্রতিবেদকঃ 

 একাধিক নারী ধর্ষণের অভিযোগে আনিসুজ্জামান সেতু নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব-১২। ভুক্তভোগীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে ঈশ্বরদী থানায় সোপর্দ করেছে পাবনা র‌্যাব-১২।

পরে সেতুকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঈশ্বরদী থানার ওসি আসাদুজ্জামান। 

সেতু সাঁথিয়া পৌরসভাধীন বোয়াইলমারী গ্রামের আকরামের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ২টি বিবাহ বিচ্ছেদসহ একাধিক মেয়েকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ রয়েছে।

থানা পুলিশ ও ভুক্তভোগীর অভিযোগে জানা গেছে, ঈশ্বরদীর এক মেয়ের সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় সেতুর। সেই সূত্র ধরে গত মার্চে সেতু বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই মেয়েকে হোটেলে নিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

পরে বিষয়টি ওই মেয়েটির পরিবার জানতে পেরে সেতুর পরিবারের নিকট বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলে তারা বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি দেখিয়ে ফিরিয়ে দেয়। শেষে উপায়ন্তর না দেখে ভুক্তভোগী ধর্ষিতা বাদী হয়ে ইশ্বরদী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন।

অপরদিকে পাবনা সদরের এক নারীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার কাছ থেকে ব্যবসার উদ্দেশ্য ৫ লাখ টাকা নেয়। টাকা চাইতে গেলে খুন জখমের হুমকি দিচ্ছে বলে পাবনা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

ঈশ্বরদী থানার ওসি বলেন, এর আগে সেতু পর পর ২ স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়েছে। পাবনা সদর থেকে আরও একটি মেয়ে এসেছিল সেতুর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিতে। সেতুর কাজই হচ্ছে বিয়ে করে কিছুদিন রেখে পরে ডিভোর্স দেয়া ও মেয়েদের সঙ্গে পরিচয় করে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে তাদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করা।

কোন মন্তব্য নেই