ঢাকারবিবার , ২২ আগস্ট ২০২১

বরিশালে ইউএনও-ওসির বিরুদ্ধে মামলা, তদন্ত করবে পিবিআই

জেলা প্রতিনিধি
আগস্ট ২২, ২০২১ ৬:০৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমান, কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম ও উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজালাল মল্লিকের নামে পৃথক দুটি মামলার আবেদন করা হয়েছে। বরিশালে ইউএনওর বাসভবনে হামলা ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় প্রশাসনের দায়ের করা মামলার কাউন্টার হিসেবে এই দুটো নালিশি অভিযোগ আদালতে দায়ের করা হয়।

বরিশাল সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম এবং সিটি করপোরেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদার নালিশি আবেদন করেন। বরিশালের অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুম বিল্লাহ নালিশি অভিযোগ দুটি গ্রহণ করে তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) তদন্তের জন্য আদেশ দিয়েছেন।

বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের বিরু‌দ্ধে আদালতে দুটি মামলার নালিশি আবেদন করা হয়েছে। সেখা‌নে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), ইউএনওর বাসভবনে দায়িত্বরত আনসার সদস্যসহ ৩০ থেকে ৪০ জনকে বিবা‌দী করা হ‌য়ে‌ছে।

মামলার নালি‌শি আবেদন দুটিতে ইউএনও মুনিবুর রহমানের বিরুদ্ধে সিটি করপোরেশনের কাজে বাধাদান, বিনা উসকানিতে বিসিসির কর্মচারীদের ওপর গুলিবর্ষণের নির্দেশ দেওয়া, হামলা, গুলিবর্ষণের মাধ্যমে একাধিক ব্যক্তির অঙ্গহানির অভিযোগ করা হয়েছে।

জেলার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে রবিবার এ আবেদন করেন বরিশালের প্যানেল মেয়র-২ রফিকুল ইসলাম খোকন ও সিটি করপোরেসনের রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদার।

প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলামের করা না‌লি‌শি মামলার আবেদনে ইউএনও মুনিবুর রহমান, কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম, এসআই শাহজালাল মল্লিক ও ইউএনওর বাসভবনে দায়িত্বরত আনসার সদস্যদের বিবাদী করা হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদারের করা মামলার আবেদনে ইউএনও মুনিবুর রহমান ও তার বাসভবনে দায়িত্বরত আনসার সদস্যদের বিবাদী করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ চত্বরে বুধবার রাতে শোক দিবসের ব্যানার খোলাকে কেন্দ্র করে ইউএনও মুনিবুর রহমানের বাসভবনে হামলা হয়। এ সময় সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ওপর আনসার সদস্যদের গুলি ছোড়ার অভিযোগ ওঠে। সংঘর্ষ হয় পুলিশের সঙ্গেও।

এতে মেয়রসহ ৩০ জন আহত হন। তবে আওয়ামী লীগের দাবি, আহতের সংখ্যা ৭০। এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা দুই মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে। মামলার মোট আসামি ৬০২ জন, তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

error: Please Stop!!You can not copy this content becuase this site content is under protection. Thank You Itihas24 Developer Team