ঢাকাশুক্রবার , ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১

পাবনা জেলা আ.লীগের সম্মেলন ৭ নভেম্বর

বিশেষ প্রতিবেদক
সেপ্টেম্বর ১০, ২০২১ ১:০৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দল এবার উঠে আসলো দলের সভাপতির সামনে। বিভিন্ন জেলার নেতাদের দ্বন্দ্ব নিয়ে আলোচনা মুখর হয়ে ওঠে দলের কার্যনির্বাহী সভা। দলের নেতাদের আরও জনমুখী কাজ করতে, ঝামেলা মেটাতে এবং দেশকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিতে নানা নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। সভায় নাটোর ও পাবনা জেলার সম্মেলনের তারিখ চূড়ান্ত হয়।

করোনার কারণে প্রায় এক বছর পর এদিন দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে সভা শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হওয়া এ সভা বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত চলে। সভায় দলের কার্যনির্বাহী সংসদের অর্ধশত নেতা উপস্থিত ছিলেন। সভায় সূচনা বক্তব্য দেন দলের সভাপতি। পরে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদ এবং ১৫ আগস্টে নিহতসহ আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতাদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর শোক প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়।

রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেনসহ কয়েকজন নেতা নাটোরে জেলার সমস্যা নিয়ে কথা বলেন। কামাল বলেন, শহরে শফিকুল ইসলাম শিমুলের কারণে জেলা সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সেখানে যেতে পারেন না। তাঁকে কেন্দ্রীয় নেতারা ফোন দিলে, কল ধরেন না। ডাকলে আসেন না। এ সময় জাহাঙ্গীর কবির নানক ও মির্জা আজম শিমুলের পক্ষে অবস্থান নেন।

এ সময় নাটোরে সম্মেলনের তারিখ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করলে শেখ হাসিনা তখন কামালকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি শিমুল বাহিনীকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন কিনা। জবাবে কামাল হোসেন বলেন, সম্মেলনের তারিখ হলে বাকিটা তিনি সামলে নেবেন।

নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শিমুলের প্রসঙ্গ উঠলে তার দেশের বাইরে (বেগমপাড়া) বাড়ি করার প্রসঙ্গটিও আলোচনায় স্থান পায়। এ সময় দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের (আওয়ামী লীগের) নামে বিভিন্ন মিথ্যা অপপ্রচার চলছে। এগুলোর সঠিক তথ্য-উপাত্ত দিয়ে জবাব দিতে হবে। আর দেখা যায়, অনেক সময় আমাদের দলের লোকজনও নানা ইস্যুতে বিরোধীদের সঙ্গে সুর মেলান। এতে আমরাই ক্ষতিগ্রস্ত হই। এসব করলে চলবে না। মিথ্যাচারের জবাব দিতে হবে। নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসবে ষড়যন্ত্র ততই বাড়বে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। বিদেশি মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। এ সময় দলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদকে এ বিষয়গুলো দেখভালের কথা বলেন তিনি।

নাটোর, পাবনা জেলার কোন্দল নিরসনের জন্য দ্রুত সম্মেলন দিতে নির্দেশনা দেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ৬ নভেম্বর ও পাবনার সম্মেলন ৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়। এ ছাড়া নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, শরীয়তপুরসহ বিভিন্ন মেয়াদোত্তীর্ণ জেলাকে দ্রত সম্মেলনের তাগিদ দেন শেখ হাসিনা।

সভায় দলের যে কোনো পর্যায়ে বহিষ্কারের মতো সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে তড়িঘড়ি না করে যাচাই-বাছাইয়ের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, একজন আরেকজনের বিরুদ্ধে বানোয়াট অভিযোগও করতে পারে। সভায় সাংগঠনিক সম্পাদকদের বাইরে দলের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ ও মেরিনা জাহান প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য দেন।

error: Please Stop!!You can not copy this content becuase this site content is under protection. Thank You Itihas24 Developer Team