ঢাকাশুক্রবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০২১

ভারতকে হারিয়ে ফাইনালের পথে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
ডিসেম্বর ১৭, ২০২১ ৭:৫৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। শক্তিশালী ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে মারিয়া-তহুরারা।
শুক্রবার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ম্যাচের অষ্টম মিনিটে পেনাল্টি থেকে জয়সূচক গোলটি করেছেন শামসুন্নাহার।

ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটে বক্সের মধ্যে তহুরা খাতুনকে ফাউল করেন ক্রিতিবা দেবী। সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির বাশি বাজান রেফারি। সফল স্পট কিকে লাল-সবুজদের এগিয়ে নেন শামসুন্নাহার সিনিয়র। বলের দিকে ঝাপালেও নাগাল পাননি ভারতের গোলরক্ষক আনশিকা।
৩৩তম মিনিটে ম্যাচের প্রথম কর্ণার পায় বাংলাদেশ। তবে সেখান থেকে কোনো সুযোগ বানাতে পারেনি তহুরারা। ৩৭তম মিনিটে মাঝ মাঠের খানিকটা সামনে থেকে আখি খাতুনের দূর পাল্লার ফ্রিকিক জায়গায় দাঁড়িয়ে হাত দিয়ে কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন ভারতের গোলরক্ষক আনশিকা।

৪৩ মিনিটে বল জালে জড়িয়েছিলেন শামসুন্নাহার জুনিয়র। কিন্তু অফসাইডের কারনে গোল হয়নি। ম্যাচে এগিয়ে থাকলেও ছন্দহীন ফুটবল খেলে বাংলাদেশের মেয়েরা। বিপরতীতে ভারতের মেয়েরাও পারেনি আক্রমণ শানাতে।
প্রথমার্ধের বাশি বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে রেফারির দিকে তেড়ে যান ভারতের প্রধান কোচ এলেক্স এম্ব্রোস। কারণ হিসেবে জানা যায়, ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটে দেওয়া পেনাল্টির সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি তিনি। তাই রেফারির উদ্দেশ্যে তেড়ে গিয়েছিলেন এলেক্স। তবে এলেক্সকে কোন কার্ড দেখাননি রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই আক্রমণে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করে। কিন্তু কেউই আর বল জালে জড়াতে পারেনি। ৫৭ মিনিটে দারুন সুযোগ এসেছিল বাংলাদেশের সামনে। কর্ণার থেকে নিলুফারের হেড আরেক কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন ভারতীয় গোলরক্ষক।
ম্যাচে ফেরার সুযোগ পেয়েছিল ভারতও। ৬৩ মিনিটে বেশ ভালো একটা সুযোগ নষ্ট করে দলটি। বাংলাদেশের গোলরক্ষক এগিয়ে এসেছিলেন। সুমাতি তার মাথার উপর দিয়ে শট নিলেও লক্ষ্য ঠিক রাখতে পারেনি।

৭৩ মিনিটে আবারও সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন ভারতের সুমাতি কুমারী। কিন্তু কাজে লাগাতে পারেন নি সে সুযোগটাও। শেষ পর্যন্ত এক গোলের জয় নিয়ে স্বস্তির হাসিতে মাঠ ছাড়ে বাংলার মেয়েরা।
রোববার (১৯ ডিসেম্বর) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম রাউন্ডে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

error: Please Stop!!You can not copy this content becuase this site content is under protection. Thank You Itihas24 Developer Team