রাজশাহীতে ডাকাত দলের ৬ সদস্য গ্রেফতার » Itihas24.com
ঈশ্বরদী২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
ঈশ্বরদীর সবশেষ নিউজ । ইতিহাস টুয়েন্টিফোর

রাজশাহীতে ডাকাত দলের ৬ সদস্য গ্রেফতার

বিশেষ প্রতিবেদক
আগস্ট ২২, ২০২২ ৫:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রাজশাহী মহানগরীর শাহ মখদুম থানার পোস্টাল একাডেমির সামনে ডাকাতির ঘটনায় ৬ ঘণ্টার মধ্যে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে মহানগর পুলিশ। এসময় গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ডাকাতি হওয়া ১৬ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪০ টাকা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার হয়। সেই সঙ্গে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত অ্যাম্বুলেন্সটি জব্দ করা হয়েছে। সোমবার বিকালে আরএমপি সদরদপ্তর কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মজিদ আলী।

গ্রেফতারকৃতরা হলো রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার পূর্ব মোল্লাপাড়ার আশিক ইসলাম (২৪), মো. হৃদয় (২৪), রাজপাড়া থানার আলীগঞ্জ মধ্যপাড়ার আবদুর রহমান (২১), আবদুর রহিম (২০), ডিঙ্গাডোবা ঘোষ মাহালের রিকো ইসলাম (২১) ও চন্ডীপুর সুফিয়ানের মোড়ের মো. ইয়ামিন (২০)।

পুলিশ জানায়, নগরীর পবা থানার একলাছ মোল্লাসহ ৮৫ জন পান ব্যবসায়ী একটি সমিতি গঠন করে রাজশাহী জেলার দুর্গাপুর থানার দাওকান্দি বাজারে পানের ব্যবসা করেন। তারা দীর্ঘদিন ধরে রাজশাহীর বিভিন্ন অঞ্চল থেকে পান কিনে ঢাকার শ্যামবাজারে বিভিন্ন আড়তে বিক্রি করে থাকেন।

রবিবার (২১ আগস্ট)ভোর সোয়া ৫ টায় রায়হান আহম্মেদ (২৬), শহিদুল ইসলাম (৩০) ও আমিনুল ইসলাম (২৭) ঢাকায় পান বিক্রির ৩৪ লাখ ২৭ হাজার টাকা নিয়ে শিরোইল বাস টার্মিনালে আসেন। সেখান তারা একটি সিএনজি অটোরিকশা ভাড়া করে দাওকান্দি বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হন। একসময় তারা লক্ষ্য করেন, তাদের সিএনজি অটোরিকশাকে একটি নীল রঙয়ের অ্যাম্বুলেন্স অনুসরণ করছে। ভোর সাড়ে ৫ টায় নগরীর শাহ মখদুম থানার পোস্টাল একাডেমির সামনে পৌঁছালে পিছন থাকা সেই অ্যাম্বুলেন্সটি হঠাৎ সামনে এসে তাদের গতিরোধ করে। সিএনজি অটোরিকশাটি থামার সঙ্গে সঙ্গেই অ্যাম্বুলেন্স থেকে ৬-৭ জন ডাকাত বের হয়ে ধারালো নিয়ে তাদের ঘিরে ধরে। এসময় রায়হান পালানোর চেষ্টা করে। ডাকাতরা তাকে ধরে মারধর করে তার কাছে থাকা ১৪ লাখ ২৭ হাজার টাকা সহ অন্যদের কাছে থাকা মোট ৩৪ লাখ ২৭ হাজার টাকা ডাকাতি করে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে আম চত্বরের দিকে পালিয়ে যায়।

একলাছ মোল্লার অভিযোগের পর পুলিশ অভিযানে নামে। পুলিশের একটি টিম আসামিদের নাম ঠিকানা ও অবস্থান শনাক্ত করে গ্রেফতারে অভিযান শুরু করে। পরবর্তীতে শাহ মখদুম থানা পুলিশ আরএমপি’র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় সিসিটিভি ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত এ্যাম্বুলেন্স-সহ আসামিদের শনাক্ত করে। এরপর তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে আসামিদের গ্রেফতার করে। এসময় আসামিদের কাছ থেকে ডাকাতি হওয়া ১৬ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪০ টাকা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার হয়। সেই সঙ্গে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত অ্যাম্বুলেন্সটি জব্দ করা হয়েছে। অবশিষ্ট টাকা উদ্ধার ও সহযোগী আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মজিদ আলী।

বিজ্ঞাপন

BONOLOTA IT POS ads