পাবনায় জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ইন্দুবালা ভাতের হোটেল » Itihas24.com
ঈশ্বরদী২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
ঈশ্বরদীর সবশেষ নিউজ । ইতিহাস টুয়েন্টিফোর
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পাবনায় জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ইন্দুবালা ভাতের হোটেল

জেলা প্রতিনিধি
জুন ১, ২০২৩ ৪:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

উপন্যাস ও ওয়েব সিরিজের জনপ্রিয়তার পর এবার ‘ইন্দুবালা ভাতের হোটেল’ নামে রেস্তোরাঁ চালু হয়েছে পাবনায়। রেস্তোরাঁর উদ্যোক্তা বলছেন, ভিন্নধর্মী নামের কারণে নজর কাড়লেও খাবারের মানে কোনো অংশে পিছিয়ে নেই রেস্তোরাঁটি।

রেস্তোরাঁটিতে মিলছে সোনামুখ ডাল, কুমড়োর ছক্কা, কচুবাটার মতো নানা খাবার। চালুর দ্বিতীয় সপ্তাহেই ভোজনরসিক মানুষের ভিড় বেড়েছে হোটেলটিতে।

পাবনার জালালপুরে গত ১৯ মে জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজের নামে ইন্দুবালা ভাতের হোটেল চালু হয়। হোটেল খোলার পর থেকেই এটি দেখতে এবং খাবারের স্বাদ নিতে আসছেন উৎসুক নানা বয়সী মানুষ। ঘরোয়া পরিবেশ, খাবারের সাশ্রয়ী মূল্য ও ভালো মান নিয়ে সন্তুষ্টি জানিয়েছেন গ্রাহকেরা।ইন্দুবালা ভাতের হোটেলের খাবার। ছবি: ইনডিপেনডেন্ট
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাইমুনা আক্তার বলেন, ‘অন্য হোটেলের তুলনায় দাম কম হওয়ায় হোটেলটি চালুর পর প্রায়ই খেতে আসি। আমাদের অনেক বন্ধুরা প্রতিদিন শহরের মেস বা ক্যাম্পাসের হোস্টেল থেকে খেতে আসে। শুধু তাই নয়, আমাদের শিক্ষকেরাও এখানে খেতে আসে।’

বাহারি আইটেমের খাবারের স্বাদ নিতে বাগেরহাট থেকে আসা শেখ সোহান বলেন, ‘ইন্দুবালা ভাতের হোটেল আমরা বইয়ের পাতাতে পড়েছি। কিন্তু বাস্তবে দেখা পাইনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ কিছু দিন ধরে ইন্দুবালা ভাতের হোটেলের নাম দেখে আমরা কয়েকজন পাবনায় এসেছি। এই হোটেলে দুপুরের খাবার খাচ্ছি। খাবারের সকল আইটেম খুব দারুণ। অল্প দামে ভালো মানের খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। অনেক ভীড় হলেও সকলকে সিরিয়াল অনুযায়ী খাবার দেওয়া হচ্ছে।’রেস্তোরাঁয় খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে।

হোটেলের খাবার পরিবেশনকর্মী জোসনা আক্তার বলেন, হোটেলে অনেক ব্যতিক্রমী খাবার রয়েছে। পাবনা, নাটোর সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, বাগেরহাটসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আমাদের এখানে ভোজনরসিক মানুষ খাবার খেতে আসছে।

রেস্তোরাঁর উদ্যোক্তা সোহানী হোসেন বলেন, সম্প্রতি ওয়েব সিরিজ ‘ইন্দুবালা ভাতের হোটেল’ জনপ্রিয়তা পেলে একই নামে রেস্তোরাঁ চালু করা হয়। চালু হওয়ার দুই সপ্তাহেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক প্রচার পেয়েছে হোটেলটি।

সোহানী হোসেন জানান, গ্রামীণ বাঙ্গালি আবহে থালার ওপর কলাপাতায় খাবার পরিবেশন হয় হোটেলটিতে। ভিড়ের কারণে কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হলেও, ভিন্ন খাবারের স্বাদ নিতে হোটেলে আসছেন ভোজনরসিকরা।

বিজ্ঞাপন

BONOLOTA IT POS ads